|| নিশানের লাভার ~ অনুগল্প ||~ স্বদেশ কুমার গায়েন



একবার,দু'বার,তিনবার নয়,এই নিয়ে প্রায় পঞ্চাশ বার পকেট থেকে ফোনটা বের করলো নিশান।ফোনটা বের করে কি যেন চেক করলো,তারপর মুখটা কালো করে আবার পকেটে ঢোকালো।বিরক্তি তে একবার মুখ দিয়ে 'ধুর' শব্দ টা বেরিয়ে গেল।কি যে করে মেয়েটা! সেই কোন সকালে ঘুম থেকে উঠে মেসেনজারে 'গুড মর্নিং' লিখে পাঠালাম, এখনোও তার কোনো রিপ্লাই নেই।মনে মনে কথা গুলো বলল নিশান।

এখন সকাল সাড়ে ন'টা।দ্রুতো গতিতে বাস ছুটছে হাইওয়ের উপর দিয়ে।বাসের ঠিক জানালার পাশে বসে আছে নিশান।পাশেই অদিতি একমনে খবরের কাগজের শিরোনামে চোখ বোলাচ্ছে।দুজনরই গন্তব্য কোলাঘাট।বছর খানেক হল কোলাঘাট রেল স্টেশনে চাকরী করে দু'জন।সেই থেকেই তারা বাসের নিত্য সঙ্গী।খবরের কাগজ বন্ধ করে, অদিতি বলল,-"কি ব্যাপার রে নিশান?সেই থেকে ফোনটা পকেট থেকে বের করছিস আর ঢোকাচ্ছিস?তোদের হয়েছে এই এক জ্বালা, সারক্ষন ফোন নিয়ে ঘুটুর ঘুটুর করা।আজ কাল বড্ড আনমনা দেখছি তোকে।বাসস্ট্যান্ডে গুডমর্নিং বললাম,কিন্তু কোনো পাত্তাই দিলি না,ফোনে ব্যস্ত হয়ে পড়লি।"

-"তুই কি বুঝবি হে প্রেমের ব্যাপার?প্রেম করলে বুঝতে পারতিস, ভালোবাসার মানুষের কাছ থেকে সকাল বেলা,একটা গুডমর্নিং মেসেজ পেতে কত ভাল লাগে!"
-"প্রেমে পড়েছিস!" চোখ বড় করলো অদিতি।
-"হু।"
-"কার প্রেমে? কবে?"
-"অবকোর্স একটা মেয়ের। নাম দিশা রয়।মাসখানেক হল।তোর কথাও বলেছি তাকে।কি মিষ্টি কথা বলে রে মেয়েটা!"
-"আমার কথা! কই দেখা দেখা মেয়েটার ছবি!"
-"আমি ওর ছবি দেখে প্রেমে পড়িনি।ওর কথা শুনে প্রেমে পড়ে গেছি।"
নাক সিঁটকালো অদিতি।-"ওহ! এই করেই মরিস তোরা।দেখা নেই,শোনা নেই দুম করে প্রেমে পড়ে গেলি?যদি ছেলে হয় ওটা ?"
-"দুম করেই প্রেমে পড়ে সবাই।ছেলে হতেই বা যাবে কেন? আর আমি অত বোকা নই।"


জানালা দিয়ে বাইরে আনমনা হয়ে গেল নিশান।আরেকবার পকেট থেকে ফোনটা বের করতেই,দিশার মেসেজ পেল।ঠোঁটের ফাঁকে হাসি ফুটিয়ে লিখলো,-" দিশা,তোমার একটা ছবি দাও তো।যে বান্ধবীর কথাটা বলেছিলাম না তোমাকে,সে দেখতে চাইছে।"
"ওয়েট।"ওপার থেকে মেসেজ এল।


দু'মিনিট পর মেসেজে দিশার ছবি আসতেই, হাইভোল্টেজ শক খেলো নিশান।অদিতি কে ডেকে সেই ছবি দেখানোর সাহস হল না।তার দিকে চেয়ে মিটিমিটি হাসছে অদিতি।ভুরু নাচাচ্ছে।সত্যিই সে একটা বোকা পাঁঠা।বাস এখন রুপনারায়ণ নদীর উপর দিয়ে ছুটছে।নিশানের ইচ্ছে করলো, আনন্দে বাস থেকে নদীর জলে লাফিয়ে পড়তে।
স্বদেশ কুমার গায়েন ( নভেম্বর, ২০১৬)

No comments

Powered by Blogger.