||দুটি কবিতা ||~স্বদেশ কুমার গায়েন

কবিতার গল্প 

 একটা কবিতা লিখব।
কিন্তু তার গল্প কি হবে?
কবিতার আবার গল্প হয় নাকি?
কেন হবে না!
একটি ছেলের গল্প,
একটি মেয়ের গল্প
তাদের ভালবাসার গল্প;
আর, একটু একটু করে সেই ভালবাসা ....
হারিয়ে যাওয়ার গল্প।

ও তোমার কবিতা শুধু ভালবাসার?
আমাদের নিয়ে লিখতে পার না?
অসহায় মেয়েদের গল্প।
একট শুনশান রাতের রাস্তায়…
একদল নরপিসাচ যাদের শরীরটাকে নিয়ে
খেলেছিল রাগবি বল;
তারপর ছুঁড়ে ফেলেছিল পচা নর্দমার কালো জলে অথবা,উন্মুক্ত রাস্তার কোলে...
আমরা বুঝি তোমার কেউ না?
সবাই নষ্ট মেয়ে!
হাত দিয়ে থামাতে যাই পাথরের নিরব কান্না।


হাতটা ধরে কেউ টানে,
পিছনে তাকাই......
একদল বিবস্ত্র কচি কচি শিশুদের মুখ।
ভাঙা দাঁতের খিল খিল হাসি ,প্রশ্নের তির হয়ে বেঁধে আমার বুকে।
আমরা কি তোমাদের মতো জন্মায় নি?
তবে,কোলে তুলে নাও না কেন?
তোমার কবিতা কি শুধু.....
বরফের দেশের পেঙ্গুইন পাখি? আর,
নীল সাগরের ডলপিনে ঝাঁক?
আমরাও কবিতা হব,
ফুটপাতের কবিতা; স্টেশনের রাতের নিয়ন আলোর কবিতা।
আমরা বুঝি তোমার কেউ না?
ফুটপাতে ফেলে দেওয়া কলা, লেবু, পেয়ারার খোসা....আর বাসি পোড়া রুটি.......
একটা অসহ্য যন্ত্রনা আমার চামড়া ছিঁড়ে
রক্তে প্রবেশ করে.....
শূন্যতাকে দুহাতে আঁকড়ে ধরে চিৎকার করে উঠি......
তোমরা সবাই আমার
সবাই আমার কবিতা
আমার কবিতার গল্প।
~


অপেক্ষা


ঐ যে দূরে নদীর ওপারে,
সূর্য টা যেন মিশে যায় একটু একটু করে
নীল জলরাশির মধ্যে;
ছোটো ছোটো পাখিদের দল
কিচিমিচি শব্দে আবির রাঙা আকাশ দিয়ে উড়ে যায় তাদের বাসার দিকে
বুঝিয়ে দেয়,দিনের শেষে তারাও
ক্লান্ত....

শুধু ক্লান্ত নই আমি।

একাকী নদীর পাড়ে আজও বসে আছি
তোমার অপেক্ষায়....।
যদি একদিন তুমি পাখি হয়ে উড়ে আস
আমার কাছে,মেঘ হয়ে ভেসে
বেড়াও আমার মাথার উপরে;
বৃষ্টি হয়ে ঝরে পড় আমার তৃষ্মার্ত
বুকে…।

নিস্তব্দ ,নিঝুম চারিদিক
শুধু নদীর জলতরঙ্গের ছলাৎ ছলাৎ শব্দ,
যেন তোমার পায়ের নুপুর হয়ে আমার
কানে বাজে………।
দখিনা বাতাস ভাসিয়ে নিয়ে যায়
তোমার স্বপ্নের জগতে-
যেখানে নেই কোনো হিংসা,
যেখানে নেই কোনো ভেদাভেদ;
শুধু আছে ভালবাসা....

আর আমি আছি তোমার অপেক্ষায়……।।

স্বদেশ কুমার গায়েন [২০১০]




No comments

Powered by Blogger.